কুমিলা ঈদে বরাবরের মতো যানজটের ঝুকীতে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের ১২টি পয়েন্ট 

রাজিব বণিক ।।   প্রতি ঈদের আগে ও পরে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে যানবাহনের বারতি চাপে ভোগান্তিতে পড়তে হয় ঘরমুখো মানুষকে। মহাসড়কের ১২টি পয়েন্ট যানজটের আশংকা থাকে। বিশেষ করে সেতু, ওভার পাস এবং বাজার এলাকাগুলোতেই এ ভোগান্তির মাত্রা বেশি হয়ে থাকে। যানজটের এই ভোগান্তি এড়াতে এবার দাউদকান্দি টোল প্লাজাসহ মহাসড়কে বিশষ ব্যবস্থা নিচ্ছে কর্তৃপক্ষ। তবে ফেরী সার্ভিস চালুর দাবি।  ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লা অংশের ১০৪ কিলোমিটারে গৌরিপুর, চান্দিনা, নিমসার, ময়নামতি ক্যান্টনমেন্ট, পদুয়ার বাজার, চৌদ্দগ্রাম বাজারসহ জনবহুল বাজার ও বাসস্ট্যান্ড এলাকা এবং মেঘনা, মেঘনা-গোমতী ও কাচপুর সেতুসহ কমপক্ষে ১২ টি পয়েন্টে প্রায় প্রতিদিনই যানবাহনের চাপ থাকে। সড়ক বিভাগের এক জরিপ অনুযায়ী সাধারণ সময়ে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের গড়ে প্রতিদিন ২৫ হাজার যানবাহন চলাচল করে। ঈদের আগে ও পরে এর পরিমান দাঁড়ায় দ্বিগুনেরও বেশী। সবমিলিয়ে ঈদকে কেন্দ্র করে এবারও যানজটের আশংকা রয়েছে। মেঘনা ও মেঘনা-গোমতি এবং কাঁচপুর সেতু, পদুয়ার বাজার ও ফেণী রেলওয়ে ওভারপাস দুই লেন। ফলে মহাসড়কটি চারলেনে উন্নীত হলেও এর সুফল মিলছে কম। সেতুর সামনে টোল পাজায় ৮টি লেনে টোল আদায় করা হয়। টোল পরিশোধের পর যানবাহন গুলো সেতু পারাপার হয় মাত্র এক লেনে। এর ফলে যানজট সৃষ্টি হয়। এছাড়া রয়েছে টোলপ্লাজা গুলোতে ভারী যানবাহনের ওজন পরিমাপে বাড়তি সময় ব্যায়। তবে ঈদ উপলক্ষে সেতু এলাকায় ফেরী সার্ভিস চালু করা হলে যানজট এড়ানো সম্ভব বলে মনে করছেন সাধারণ জনগণ। ঈদের আগে ভোগান্তি এড়াতে হাইওয়ে পুলিশের পাশাপাশি জেলা পুলিশ এবং সড়ক ও জনপথ বিভাগ তৎপর রয়েছে বলে জানালেন এই দুই কর্মকর্তা।

ঈদে ভয়াবহ যানজটের দুর্ভোগ রোধে এবং মহাসড়কে নিরাপত্তায় যথযথ ব্যবস্থা গহণ করা হবে এমনটাই প্রত্যাশা সবার।

- কুমিল্লানিউজডেক্স / সম্পাদনা/ জেনিফার পলি/ ১৪ জুন ১৮ইং

 

দারোগা বাড়ি, উত্তর চর্থা
কুমিল্লা-৩৫০০, বাংলাদেশ
ই-মেইল: bdcomillanews24@gmail.com
নিউজ রুম: +8801976530514

প্রধান সম্পাদকঃ হুমায়ূন কবির রনি
নিউজরুম এডিটরঃ তানভীর খন্দকার দীপু
ই-মেইলঃ editor@comillanews24.com