মুরাদনগরে অপহরণকারী চক্রের হাতে অপহৃতের চাচা নিহত

মোঃ এমদাদুল হক রনি ।। কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলায় অপহরণকারী চক্রের হামলায় প্রাণ গেল অপহৃত শাহনাজের চাচা ইয়াসিন মুন্সীর (৫৫)। হত্যাকাণ্ডে জড়িত দুজনকে আটক করে দেবিদ্বার থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছেন স্থানীয়রা।

শুক্রবার (২৯ সেপ্টেম্বর) রাত ৮টায় মুরাদনগর উপজেলার ধামঘর ইউনিয়নের নোয়াখলা গ্রামে সফিকুল ইসলামের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। নিহত ইয়াসিন মুন্সী কুমিল্লার দেবীদ্বার উপজেলার শ্রীপুর গ্রামের মৃত লতিফ মুন্সীর ছেলে।

আটকরা হলেন, দেবিদ্বার উপজেলার শ্রীপুর গ্রামের হাসান খানের ছেলে মনির খান (৩৩) ও একই গ্রামের বজলুর রহমানের ছেলে কাউছার মিয়া (৪০)।

স্থানীয় সূত্র জানায়, দেবীদ্বার উপজেলার এলাহাবাদ ইউনিয়নের শ্রীপুর গ্রামের আনিছ মিয়ার মেয়ে শাহনাজ বেগমকে অপহরণ করা হয়। অপহরণের পর শাহনাজের পিতা আনিছ মিয়া ৩০ আগস্ট কুমিল্লা আদালতে শ্রীপুর গ্রামের প্রভাবশালী কাউছার মিয়াকে প্রধান আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি অপহরণ মামলা দায়ের করলে আদালত দেবীদ্বার থানা পুলিশকে মামলাটি এফআইআর হিসেবে গণ্য করে অপহৃত শাহনাজকে উদ্ধারের প্রয়োজনীয় নির্দেশ দেন।

আদালতের নির্দেশে দেবীদ্বার থানা পুলিশ ৪ সেপ্টেম্বর মামলাটি এফআইআর করে এবং ২৬ সেপ্টেম্বর রাতে পুলিশের একটি দল ঢাকা থেকে শাহনাজকে উদ্ধার করে। অপহরণকারীদের কবল থেকে উদ্ধারের পর শাহনাজ আদালতে তার অপহরণের ঘটনা ও তার ওপর হওয়া নির্যাতনের ঘটনায় ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেন।

মেয়েকে উদ্ধারের পর অপহরণকারীদের কাছ থেকে নিজেদের প্রাণ বাঁচাতে আনিছ মিয়া পার্শ্ববর্তী মুরাদনগর উপজেলার ধামঘর ইউনিয়নের নোয়াখলা গ্রামের তার ভগ্নিপতি সফিকুল ইসলামের বাড়িতে আশ্রয় নেন।

এদিকে আনিছ মিয়া তার মেয়েকে নিয়ে নোয়াখলা গ্রামে আছে জানতে পেরে অপহরণ মামলার আসামি কাউছার মিয়া শ্রীপুর গ্রামের একাধিক নারী নির্যাতন মামলার আসামি মনির খানকে সাথে নিয়ে নোয়াখলা গ্রামে আসেন এবং মামলাটি তুলে নেয়ার হুমকি দিতে থাকেন। এক পর্যায়ে আনিছ মিয়াকে তুলে নেওয়ার চেষ্টা করেন তারা। 

এরপর স্থানীয়রা এর প্রতিবাদ করে এবং ঘটনাটি এলাহাবাদ ইউপির চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলামকে অবহিত করলে তিনি কাউছার ও মনিরকে দেবীদ্বার নিয়ে যাওয়ার জন্য শাহনাজের চাচা ইয়াসিন মুন্সীসহ ৮-১০ জনকে ঘটনাস্থল সফিকুল ইসলামের বাসায় পাঠান।

স্থানীয়রা ঘটনাস্থলে এলে কাউছার ও মনির খান উপস্থিত ব্যক্তিদের ওপর হামলা করে এলোপাথারি কিল ঘুষি মেরে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। এ সময় মনির খানের এলোপাথারি ঘুষির আঘাতে ইয়াছিন মুন্সী মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। 

স্থানীয়রা ইয়াছিন মুন্সীকে দেবীদ্বার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে সেখানে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এ সময় স্থানীয়রা মনির খান ও কাউছার মিয়াকে আটক করে পুলিশের কাছে সোর্পদ করে।

মুরাদনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এসএম বদিউজ্জামান এ খবর নিশ্চিত করেছেন।

- কুমিল্লা নিউজ ২৪/মোঃ এমদাদুল হক রনি/৩০ সেপ্টেম্বের’২০১৭

 

Last modified on 30-09-2017 12:11:50 PM

দারোগা বাড়ি, উত্তর চর্থা
কুমিল্লা-৩৫০০, বাংলাদেশ
ই-মেইল: bdcomillanews24@gmail.com
নিউজ রুম: +8801976530514

প্রধান সম্পাদকঃ হুমায়ূন কবির রনি
নিউজরুম এডিটরঃ তানভীর খন্দকার দীপু
নূরুল আমিন জহির
ই-মেইলঃ editor@comillanews24.com