তিতাসে পাত্রী দেখতে গিয়ে ৪ চেয়ারম্যানসহ ৭ জন এর বিরুদ্ধে ইউএনও’র মামলায়

তিতাস   এমএ কাশেম ভূঁইয়া 06-02-2017 12:00:00 AM font size decrease font size increase font size

কুমিল্লা ডেস্ক ।।  কুমিল্লার তিতাসে পাত্রী দেখতে গিয়ে ইউএনওর দায়ের করা মামলায় আসামী হলো ৪ চেয়ারম্যানসহ ৭ জনগত শুক্রবার তিতাস থানায় সরকারী কাজে বাধা দানের অভিযোগ এনে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মকিমা বেগম বাদী হয়ে এ মামলা দায়ের করেনমামলা ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, তিতাস উপজেলার নারান্দিয়া ইউনিয়নের খলিলাবাদ গ্রামের মন্টু মিয়া সরকারের মেয়ে হাবিবা আক্তারকে গত বৃহস্পতিবার বিকালে হোমনা উপজেলার নিলখী গ্রামের মনির হোসেন মেম্বারের ছেলে আরিফের জন্য পাত্রী হিসেবে দেখতে আসে নিলখী ইউনিয়নের বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গএখবর তিতাস উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মকিমা বেগম বিশেষ সূত্রে জানতে পেরে পুলিশ প্রশাসনসহ ঘটনাস্থলে যানএসময় স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ইঞ্জিঃ সালাহ উদ্দিন আহমেদও বাল্য বিয়ে হচ্ছে কিনা যাচাইয়ের জন্য ঘটনাস্থলে ছিলেনবিবাহের আয়োজন হচ্ছে কিনা জানতে চেয়ে ইউএনও কনের পরিবারের নিকট প্রমানপত্র চানপরিবারের লোকজন পাত্রী হাবিবার একটি স্ক্যান প্রিন্ট করা জন্ম সনদ এনে দিলে তা সন্দেহ করেন এবং অনলাইনে তা যাচাই করে ভূয়া প্রমানিত হয়তখন ইউএনওকে জানানো হয়, বিয়ে নয়; পাত্র পক্ষ দেখতে এসেছে এবং বিয়ে হবেনা মর্মে স্থানীয় চেয়ারম্যান অঙ্গিকারও করেনসকলের অনুরোধে উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন এবং শুক্রবার তিতাস থানায় ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনায় বাধা এবং ভূয়া জন্ম সনদে বাল্যবিয়ের আয়োজন করার অভিযোগ এনে নারান্দিয়া ইউপি চেয়ারম্যান ইঞ্জিঃ সালাহ উদ্দিন আহমেদ, হোমনা উপজেলার নিলখী ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান গাজী মো. মোহাসিন, মো. আমির হোসেন চেয়ারম্যান, মো. সামসুদ্দিন চেয়ারম্যান, নবী হোসেন মেম্বার, অহেদ আলী মেম্বারের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেনস্থানীয় চেয়ারম্যান ইঞ্জিঃ সালাহ উদ্দিন আহমেদ সাংবাদিকদের বলেন, খলিলাবাদ বাল্য বিয়ে হচ্ছে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যাইসেখানে গিয়ে পরিবারের লোকজনের সাথে কথা বলার সময় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মকিমা বেগম স্যার পুলিশ প্রশাসনসহ উপস্থিত হনআমি তখন স্যারকে বিয়ে বন্ধ থাকবে মর্মে আশ^স্থ্য করি এবং কিছুতেই প্রাপ্ত বয়স না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে হবে বলে একাধিকবার স্যারের কাছে অঙ্গিকার করিপরে ইউএনও স্যার ঘটনাস্থল থেকে চলে আসেপরে শনিবার জানতে পারি আমাকেসহ ৭জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেঅথচ এখনো মেয়েটির বিয়ে হয়নাইতিনি সাংবাদিকদের আরো জানান, আমি মুক্তিযোদ্ধার সন্তানবিগত ৫বছর অত্র ইউনিয়নে চেয়ারম্যান হিসেবে জনগণের পাশে থেকে দায়িত্ব পালন করেছিতাই পুনরায় আলীগ থেকে মনোনয়ন পেয়ে এবারও বিপুল ভোটে নির্বাচিত হয়েছিসামাজিক কর্মকান্ডে বিশেষ অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ মাদার তেঁরেসা পুরস্কার ২০১৬ এবং এমএজি ওসমানি পুরস্কার এবং সীমান্ত কালচার ফাউন্ডেশনসহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন থেকে পুরস্কার ও সনদ প্রদান করা হয়আমি জাতীর জনক বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠায় অত্র ইউনিয়নে কাজ করে যাচ্ছিআমার বিরুদ্ধে একটা মহল প্রপাগন্ডা চালাচ্ছেএ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মকিমা বেগমের নিকট জানতে চাইলে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, আমার কর্তব্য কাজে যারা বাধা দিয়েছে, আমি তাদের বিরুদ্ধে মামলা দিয়েছি

কুমিল্লানিউজটুয়েন্টিফোরডটকম/শান্ত দে/০৬ ফেব্রুয়ারী ২০১৭

দারোগা বাড়ি, উত্তর চর্থা
কুমিল্লা-৩৫০০, বাংলাদেশ
ই-মেইল: bdcomillanews24@gmail.com
নিউজ রুম: +8801976530514

প্রধান সম্পাদকঃ হুমায়ূন কবির রনি
নিউজরুম এডিটরঃ তানভীর খন্দকার দীপু
নূরুল আমিন জহির
ই-মেইলঃ editor@comillanews24.com