আপন আলোয় বিদ্যার পথ চলা

কুমিল্লা নিউজ ডেস্ক।। সঠিক পথেপরিশ্রম যে সৌভাগ্যের প্রসূতি কথাটির ওপর প্রচণ্ড বিশ্বাসী মিম। বিশ্বাসের ওপর ভর করেই দ্রুত মিডিয়াঙ্গনে ছুটে চলেছেন নায়িকা। পাচ্ছেন সাফল্যও। ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই মনের মধ্যে পুষে রেখেছিলেন লুকানো স্বপ্ন। ক্রমেই সে স্বপ্ন বাস্তবায়নের পথে হাঁটছেন পরিকল্পনামাফিক। স্বপ্ন ছুঁতে বা চিত্রনায়িকা খেতাব পেতে বেশি দূর যেতে হয়নি। তার চলচ্চিত্র অভিনেত্রী হয়ে ওঠার প্রথম সিঁড়ি ছিলেন বিখ্যাত কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদ

 

প্রয়াত লেখকের পরিচালনায় ২০০৮ সালেআমার আছে জলছবিতে দারুণ অভিনয় করার পর থেকেই আলোচনায় উঠে আসেন বিদ্যা সিনহা মিম। এরপর কিছু বিকল্পধারার ছবিতে ভালো করার পর মিম ছুট দেন বাণিজ্যিক ছবির নায়িকা হওয়ার পথে। বিদ্যার দেবী যাকে বর দেন সে তো মেধার গুণে ছুটবেই। ছুটে চলার মধ্যেই পরিচালক জাকির হোসেন রাজু পরিচালিতআমার প্রাণের প্রিয়ানামের ছবিতে দেশের শীর্ষ নায়ক শাকিব খানের বিপরীতে অভিনয় করেন। শুরু হল বিদ্যার বাণিজ্যিক ছবির নায়িকা খেতাব নিয়ে যাত্রা

 

২০০৯ সালে ছবিটি মুক্তি পাওয়ার পরই মিমের লিপেকি জাদু করেছ বল না, ঘরে আর থাকা যে হল নাবাংলা ছবির দর্শকদের ঠোঁটে এখনও লেগে রয়েছে। এরপর আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। চলতি বছর আবারও শাকিব খানের বিপরীতে অভিনয় করছেন তিনি। ছবির নামআমি নেতা হব

 

মজার কথা হচ্ছে, দীর্ঘ সময়ের মধ্যে শাকিব খানের সঙ্গে আর জুটি বাঁধা হয়নি তার। কেন হয়নি জানতে চাইলে হাসিমুখে বলেন, ‘কথাটি কমবেশি সবাই জানেন। নতুন করে আর কী বলব?’ মূলত অপু বিশ্বাসের নিষেধাজ্ঞার কারণেই অপুর বাইরে শাকিব খানের তেমন কোনো ছবি করা হয়নি। কিন্তু এখন জুটি ভেঙেছে শাকিব-অপুর। বাংলাদেশ এবং ভারত দুই দেশের নায়িকারাই এখন শাকিব খানের সঙ্গে জুটি হয়ে অভিনয় করছেন। তালিকায় রয়েছেন মিমও। পাশাপাশি অভিনয় করছেন পশ্চিমবঙ্গের ছবিতেও

 

গত পূজায় তার অভিনীতইয়েতি অভিযানছবিটি মুক্তি পায় কলকাতায়। এতে তার সঙ্গে অভিনয় করেছেন বাংলাদেশের ফেরদৌস, কলকাতার প্রসেনজিৎ যীশু। গেল সপ্তাহে ছবিটি বাংলাদেশেও মুক্তি পায়। যদিও সাফল্যের মাপকাঠি ছিল শূন্য। ছবিতে মিম ছিলেন শুধুই অতিথি শিল্পী। তারপরও এতে তার কোনো আক্ষেপ নেই। কারণ, স্বল্প সময়ের উপস্থিতি হলেও, ইয়েতির অভিযানের মাধ্যমে কলকাতার সৃজিত মূখার্জির মতো নির্মাতার সঙ্গে কাজ করার সুযোগ হয়েছে। দুদেশে অভিনয় করার কারণে কাজের খুঁটিনাটি নানা বিষয়ই এখন মিমের জানাশোনা। কাজের কোয়ালিটি নিজের ডেডিকেশনের বিষয়েও বেশ সচেতন মিম

 

কলকাতা ঢাকা দুই ইন্ডাস্ট্রিতেই কাজ করছেন। কোন জায়গার কাজের কোয়ালিটি এবং কাজের প্রতি ডেডিকেশন বেশি থাকে? এমন প্রশ্নের উত্তরে মিম বলেন, ‘বাংলাদেশের ছবি এখন কিন্তু ভালোর দিকে এগোচ্ছে। তবে কলকাতার ওরা অনেক দূর এগিয়ে গেছেন। আমাদেরও এখন এগিয়ে যাওয়ার সময়। কিন্তু আমরা যাওয়ার চেয়ে নিজেরা নিজেদের পেছনে লেগে থাকাটাকেই বেশি গুরুত্ব দিচ্ছি। তাই কাজ করার ক্ষেত্র এবং কাজের কোয়ালিটি তখনই ভালো হবে যখন সবাই মিলে ইন্ডাস্ট্রির উন্নতির জন্য কাজ করব। আর যেখানে শান্তি থাকবে সেখানেই কাজ করে ভালো লাগবে, এটাই স্বাভাবিক।

 

বাংলাদেশে আর্টিস্ট সংকট রয়েছে এমন একটি অভিযোগও আজকাল শোনা যায়। কথার বিপরীতে আপনি কী বলেন? প্রশ্ন রাখতেই মিম বলেন, ‘আমি কিন্তু তা মনে করি না। আমাদের এখানে আর্টিস্ট কম, এটা নয়। আমি মনে করি মেকার কম। আর্টিস্টদের ভেঙেচুরে গড়ে নেবে এমন মানুষ কম। তাই বরাবরই আমাদের একই চরিত্রে দেখে দর্শকরা বোর ফিল করেন। দর্শকদেরও আমরা বিরক্ত করছি।

 

তাহলে কী কলকাতার ভেঙেচুরে গড়ার দক্ষ লোক রয়েছে? উত্তরে মিম বলেন, ‘হ্যাঁ। অনেক সময় দেখা যায় সেখানে নির্মাতারা গবেষণা চালান। তারা গবেষণা করে কাজ করেন। বিশেষ করে রিমেক বা কপি করলেও আগেরটাকে উতরে যাওয়ার চেষ্টা করেন। আমরা তা না করে কপি জিনিসকে আরও হিজিবিজি করে ফেলি।

 

২০১৪ সালেজোনাকির আলোতারকাঁটানামে দুটি ছবি মুক্তি পায় মিমের। চলচ্চিত্র সমালোচকদের কাছে ছবি দুটি প্রশংসা কুড়ালেও ব্যবসায়িকভাবে খুব একটা সাফল্য আসেনি। তাতে কী? যা হওয়ার তা ঠিকই হয়েছে।জোনাকির আলোছবির জন্য জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার উঠে যায় মিমের হাতে। আর সেই সঙ্গে নায়িকা হিসেবে দর্শকদের হৃদয়ে স্থান করে নেন। পরের বছর ২০১৫ সালেপদ্ম পাতার জল যৌথ প্রযোজনার ছবিরব্ল্যাকমুক্তি পেলেই আপাদমস্তক নায়িকা খেতাব মিলে মিমের ললাটে। তবে ব্ল্যাকে কিছুটা স্বল্প বসনে উপস্থাপিত হওয়ার দরুন খানিকটা সমালোচিতও হন তারকা

 

গেল বছর বিশ্ব ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে মুক্তি পায় মিম অভিনীত আলোচিত ছবিসুইটহার্ট এতে চিত্রনায়ক রিয়াজ বাপ্পির উপস্থিতিতে নিজেকে দারুণভাবে মেলে ধরেছেন নায়িকা। এর পরই মুক্তি পায় অনন্য মামুন পরিচালিতআমি তোমার হতে চাই ছবিটিও মিমকে বাণিজ্যিক ছবির নায়িকা হিসেবে উঁচুতে তুলে ধরে তাই এখন মানহীন কাজের প্রতি কোনো আগ্রহ নেই মিমের মধ্যে। বছরে একাধিক ছবি মুক্তির চেয়ে ভালো মানের একটি ছবিতে অভিনয়ের পক্ষে তারকা। তাই তো অভিনয়ের ব্যাপারে ভেবেচিন্তেই নিজের সিদ্ধান্ত জানাচ্ছেন। প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘প্রায় প্রতি মাসেই একটি করে ছবিতে কাজের প্রস্তাব আসে। কিন্তু নিজের চরিত্রের সঙ্গে না যাওয়াতে সেগুলোতে অভিনয় করা হয় না। সংখ্যা বাড়ানোর প্রয়োজন নেই আমার। ভালো কাজ দিয়ে সবার মাঝে বেঁচে থাকতে চাই।

 

গত মাসে মিমের অভিনীত মনতাজুর রহমান আকবর পরিচালিতদুলাভাই জিন্দাবাদছবিটি মুক্তি পায়। প্রেক্ষাগৃহে ছবিটির ভরাডুবিই হয়েছে বলা যায়। কারণ, নির্মাণে পরিচালকের উদাসীনতা। আধুনিক সময়ে এমন গল্প আর নির্মাণ থেকে দর্শক মুখ ফিরিয়ে নিয়েছেন অনেক আগেই। যদিও নির্মাতার দাবি, তার ছবি দেখার জন্য এক শ্রেণীর দর্শক রয়েছে। তাদের জন্যই এমন ছবি বানিয়েছেন তিনি। কিন্তু আদপে যাদের জন্য ছবি বানিয়েছেন তারা এখন প্রেক্ষাগৃহে বসে ছবি দেখে না। বিষয়টি নিয়ে মুখ খুলেছেন মিম। তিনি বলেন, ‘দুলাভাই জিন্দাবাদছবিটি একটি সামাজিক গল্পের ছবি। এমন ছবির দর্শক হিসেবে আলাদা একটি শ্রেণী রয়েছে। তবে তারা যদি প্রেক্ষাগৃহে গিয়ে ছবি না দেখেন তাহলে তো কিছু করার নেই।

 

সম্প্রতি মিম সিলেটে শুটিং করছেনদাগনামের একটি ছবির। অনেক আগে ছবিটির শুটিং শুরু হলেও শেষ হয়নি এখনও। গানের দৃশ্যের শুটিং বাকি। দৃশ্যগুলোর শুটিং শেষ হলেই মিম ব্যস্ত হয়ে পড়বেন নতুন কোনো কাজে। যে নতুন কাজের খবর শিগগিরই জানাবেন ভক্তদের। তাই আপাতত ভক্তদের অপেক্ষাতেই রাখতে চাইছেন তারকা

 

 

কুমিল্লা নিউজ টুয়েন্টিফোর/নিজাম আহমেদ/২০১৭

 

 

 

দারোগা বাড়ি, উত্তর চর্থা
কুমিল্লা-৩৫০০, বাংলাদেশ
ই-মেইল: bdcomillanews24@gmail.com
নিউজ রুম: +8801976530514

প্রধান সম্পাদকঃ হুমায়ূন কবির রনি
নিউজরুম এডিটরঃ তানভীর খন্দকার দীপু
নূরুল আমিন জহির
ই-মেইলঃ editor@comillanews24.com