কুমিল্লা নিউজ ডেস্ক।। আগামী বছরের জন্য বেসরকারি মেডিকেল কলেজগুলোতে আসন বাড়ানোর বিষয়টি বিবেচনার লক্ষ্যে শিগগিরই মন্ত্রণালয়, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশেষ পরিদর্শন সম্পন্ন করতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়েছেন স্বাস্থ্য পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম

বুধবার সচিবালয়ে বেসরকারি মেডিকেল কলেজে আসন বৃদ্ধি সংক্রান্ত সভায় সভাপতিত্বকালে মন্ত্রী কথা বলেন

কলেজ পরিদর্শনের পর বেসরকারি মেডিকেল কলেজে আসন বৃদ্ধির বিষয়টি বিবেচনা করা হবে বলে সভায় সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়

চিকিৎসা শিক্ষার মান বজায় রাখতে সরকার কঠোর অবস্থান অব্যাহত রাখবে উল্লেখ করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘সরকার গত কয়েক বছর যাবত মানহীন মেডিকেল কলেজগুলোর মান উন্নয়নে বিশেষ নজর দিয়েছে এবং বারবার তাদেরকে কলেজ পরিচালনার নীতিমালা মেনে চলতে সতর্ক করে দিচ্ছে। যারা মানোন্নয়নে ব্যর্থ হচ্ছে তাদের নতুন শিক্ষার্থী ভর্তি বন্ধ করাসহ বিভিন্ন ধরনের শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘এমবিবিএস বিডিএস ভর্তি পরীক্ষা নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তার মধ্যদিয়ে সম্পন্ন হচ্ছে যা বছরও দেশবাসী দেখেছে।

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ‘মেডিকেল শিক্ষা নিয়ে যারা কাজ করছেন তাদের মনে রাখতে হবে এটা কোনো শিল্প প্রতিষ্ঠান নয়। এটা শিক্ষা কার্যক্রম। মেডিকেল কলেজ থেকে যেন সুচিকিৎসক বের হতে পারে সে লক্ষ্য নিয়ে সবাইকে কাজ করতে হবে এবং সরকারও বিষয়ে সর্বোচ্চ সজাগ রয়েছে।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক, স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সচিব মো. সিরাজুল হক খান, স্বাস্থ্য শিক্ষা বিভাগের সচিব ফয়েজ আহম্মেদ, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ, বিএমএ সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, স্বাচিপ সভাপতি অধ্যাপক ডা. ইকবাল আর্সলান, বিএমডিসির সভাপতি অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ সহিদুল্লা, বিএমএ মহাসচিব ডা. ইহতেশামুল হকসহ মন্ত্রণালয় অধিদপ্তরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন

(ঢাকাটাইমস/২০ডিসেম্বর/জেবি)

 

কুমিল্লা নিউজ টুয়েন্টিফোর/নিজাম আহমেদ/২০ডিসেম্বর২০১৭

 

 

 

 

 

কুমিল্লা নিউজ ডেস্ক।।আগামী ২৩ ডিসেম্বর ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন (ডিএসসিসি) এলাকায় লাখ ৮২ হাজার শিশুকে ভিটামিনক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। ওই দিন সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত হাজার ৪৮৭টি কেন্দ্রে হাজার ৯৭৪ জন স্বেচ্ছাসেবক ২৮৬ জন সুপারভাইজারের তত্ত্বাবধানে কর্মসূচি পালিত হবে

সোমবার ডিএসসিসি মিলনায়তনে জাতীয়প্লাস ক্যাম্পেইন উপলক্ষে আয়োজিত এক ওরিয়েন্টেশন সভায় কথা জানানো হয়

ডিএসসিসির প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ডা. শেখ সালাহউদ্দীনের সভাপতিত্বে সভায় বক্তৃতা করেন জনস্বাস্থ্য পুষ্টি প্রতিষ্ঠানের পরিচালক ডা. বি এম মুজহারুল ইসলাম, সহকারী পরিচালক ডা. বিভাষ চন্দ্র মানী। সভায় সিটি কর্পোরেশনের বিভিন্ন ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আঞ্চলিক কর্মকর্তারা বক্তব্য রাখেন

সভায় জানানো হয়, আগামী ২৩ ডিসেম্বর জাতীয় ভিটামিনপ্লাস ক্যাম্পেইনে (২য় রাউন্ড) ডিএসসিসি এলাকায় থেকে ১১ মাস বয়সী ৫১ হাজার শিশুকে ভিটামিন ক্যাপসুল (,০০,০০০ আইইউ) এবং ১২ থেকে ৫৯ মাস বয়সী লাখ ৩১ হাজার শিশুকে ভিটামিন ক্যাপসুল (,০০,০০০) খাওয়ানোর লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে

ভিটামিনক্যাপসুল সম্পর্কে অপপ্রচারের বিরুদ্ধে সচতনতা সৃষ্টির আহবান জানিয়ে ডিএসসিসি প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা বলেন, সরকারের সরবরাহ করা এসব ভিটামিনক্যাপসুল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অনুমোদিত ল্যাবরেটরীতে পরীক্ষা করা হয়, যা শিশুর জন্য সম্পূর্ণ নিরাপদ

 

কুমিল্লা নিউজ টুয়েন্টিফোর/নিজাম আহমেদ/১৮ডিসেম্বের ২০১৭

 

 

কুমিল্লা নিউজ ডেস্ক।। স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রে নিরাপদ পানি, উন্নত পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থা পরিচ্ছন্নতা (ওয়াশ) কার্যক্রম শিশু মাতৃমৃত্যু হারের ঝুঁকি ২৫ শতাংশ পর্যন্ত কমাতে পারে। শিশু মাতৃমৃত্যু হার কমানোর ক্ষেত্রে সহস্রাব্দ উন্নয়ন (এসডিজি) লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রে ওয়াশ চর্চা প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিতে সুনির্দিষ্ট কর্মকৌশলের কোনো বিকল্প নেই। বুধবার ঢাকায় আয়োজিতস্বাস্থ্যখাতে ওয়াশ কর্মসূচি: যৌথ পরিকল্পনাশীর্ষক কর্মশালায় বিশেষজ্ঞরা এসব কথা বলেন

বিশ্বব্যাংক, জাতিসংঘ শিশু তহবিল (ইউনিসেফ), বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা (হু), তেরে দাস হোমস ফাউন্ডেশন, প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল, কেয়ার বাংলাদেশ এবং ওয়াটারএইডের সহযোগিতায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর কর্মশালার আয়োজন করে

সমাপনী অধিবেশনে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় স্বাস্থ্যমন্ত্রী মো. নাসিম বলেন, ‘বাংলাদেশের সব হাসপাতাল ক্লিনিকে উন্নত স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করার এখনই সময়। স্বাস্থ্যকেন্দ্রে শুধু ডাক্তার নার্সদের সেবাই নয় বরং উন্নত স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতকরণে ওয়াশ কর্মসূচির সঠিক বাস্তবায়ন করতে হবে।একটি জাতীয় কৌশলপত্র যৌথ পরিকল্পনা প্রণয়নের উপর গুরুত্ব দিয়ে তিনি বলেন, ‘গণমানুষের জন্য স্বাস্থ্যকেন্দ্রে উন্নত ওয়াশ কর্মসূচি প্রদানের লক্ষ্যে বিদ্যমান নীতিমালা পর্যালোচনা করা হবে।তিনি বিষয়ে সরকারের পাশাপাশি উন্নয়ন সহযোগীদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান

উদ্বোধনী অধিবেশনের প্রধান অতিথি স্বাস্থ্য সচিব মো. সিরাজুল হক খান বলেন, ‘স্বাস্থ্যসেবাখাতে ওয়াশ কর্মসূচির গুরুত্ব দিয়ে সরকার সম্প্রতি ৪র্থ স্বাস্থ্য পুষ্টি খাতের পরিকল্পনা প্রণয়ন করেছে, যা সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয় অধিদপ্তরের সমন্বয়ে উন্নয়ন সংস্থার সহযোগিতায় বাস্তবায়ন করা হবে।স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ওয়াশ কর্মসূচির গুরুত্ব তুলে ধরে তিনি বলেন, নবজাতককে ধরার আগে মায়েরা যদি হাত ভালোভাবে ধুয়ে নেন, তাহলে শিশুমৃত্যুর হার ৪৪ শতাংশ কমে যেতে পারে

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ বলেন, রোগীদের জন্য নিরাপদ পানি স্যানিটেশন সুবিধা নিশ্চিত করতে বাংলাদেশের অর্জনগুলোকে আরও এগিয়ে নিতে হবে। ওয়াশ সুবিধার অভাব স্বাস্থ্যসেবা গ্রহণকালে সংক্রমণের ঝুঁকি বাড়িয়ে দেয় এটা মা, নবজাতক শিশু স্বাস্থ্যের উন্নয়নে জাতীয় বৈশ্বিক প্রচেষ্টাকে ব্যাহত করে

অপর্যাপ্ত অপ্রতুল ওয়াশ অবকাঠামো এবং সেবাদাতা সেবাগ্রহীতার সঠিক চর্চার অভাব স্বাস্থ্যখাতে বাংলাদেশের অর্জনকে চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলতে পারে বলে কর্মশালায় আশংকা প্রকাশ করা হয়। কর্মশালায় জানানো হয়, বর্তমানে ওয়াশ কর্মসূচির আওতায় স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠানগুলোতে বিচ্ছিন্নভাবে কিছু কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে, যেগুলো আন্তর্জাতিক মানদণ্ডে পিছিয়ে আছে। সুনির্দিষ্ট নীতিমালার অনুপস্থিতি এর অন্যতম কারণ বলে কর্মশালায় অভিমত প্রকাশ করা হয়। কর্মশালায় বক্তারা স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানসমূহে ওয়াশ কার্যক্রম সম্পসারিত করার প্রতি গুরুত্ব আরোপ করেন

স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব নাসরিন আখতার, পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক . কাজী মোস্তফা সারওয়ার, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগের প্রধান প্রকৌশলী মো. রাশিদুল হক, ইউনিসেফের বাংলাদেশ প্রতিনিধি এডওয়ার্ড বিগবেডার এবং টিডিএইচ বাংলাদেশ প্রতিনিধি কর্মশালায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। তারা সচেতনতা বাড়ানোর পাশাপাশি স্বাস্থ্য ওয়াশ ব্যবস্থাপনা তরান্বিত করার জন্য দ্রুত কর্মপরিকল্পনা তৈরির প্রতি গুরুত্ব আরোপ করেন

দিনব্যাপী আয়োজিত কর্মশালায় সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয় অধিদপ্তরের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা, দাতা সংস্থা, এনজিও এবং গণমাধ্যমের প্রতিনিধিরা অংশ নেন

 

কুমিল্লা নিউজ টুয়েন্টিফোর/নিজাম আহমেদ/১৭ডিসেম্বের ২০১৭

 

 

কুমিল্লা নিউজ ডেস্ক।। শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালকে মডেল হাসপাতালে পরিণত করার লক্ষ্যে পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। পরিকল্পনা বাস্তবায়নে ইতোমধ্যে স্বাস্থ্য পরিবার পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় ২৩৪ কোটি টাকা অনুমোদন দিয়েছে। ২০১৮ সালের নভেম্বরের মধ্যে তিনতলা ভবনটি ছয় তলায় উন্নীত করা হবে। এছাড়া আরও একটি ১০ তলা বিশিষ্ট মাল্টিপারপাস ভবন নির্মাণ করারও অনুমোদন দেয়া হয়েছে। গণপূর্ত অধিদপ্তরের (পিডব্লিউডি) এর সার্বিক তত্ত্বাবধানে এই মাল্টিপারপাস ভবনটি নির্মিত হতে দুই থেকে তিন বছর সময় লাগবে। খবর বাসসের

শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল হাসপাতালের পরিচালক অধ্যাপক ডা. উত্তম কুমার বড়ুয়া বলেন, গণপূর্ত অধিদপ্তরের (পিডব্লিউডি) প্রধান প্রকৌশলীর সমন্বয়ে গঠিত কমিটির অনুমোদন ইতোমধ্যেই সম্পন্ন হয়েছে। আন্তঃমন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীদের নিয়ে উচ্চপর্যায়ে কমিটির অনুমোদনের অপেক্ষায়। অনুমতি পাওয়ার কার্যাদেশ প্রদান করা হলে এই হাসপাতালের ভবন সম্প্রসারনের কাজ শুরু হবে

তিনি জানান, এরইমধ্যে রোগীর সেবার মান উন্নয়নে হাসপাতালকে সাড়ে আটশ শয্যা থেকে এক হাজার ৬০০ শয্যায় রূপান্তর করার ক্ষেত্রেও কাজ করার পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। এতে চিকিৎসকদের জন্য ডরমেটরি, আইসিইউতে ১০টি শয্যা বাড়ানো হবে, ১০ শয্যার হাই ডিপেন্ডেন্সি ইউনিট (এইচডিইউ) তৈরি করার পরিকল্পনা রয়েছে

উত্তম কুমার বলেন, ইন্টার্ন ডাক্তারদের জন্য হোস্টেল এবং সিএ রেজিস্ট্রারদের জন্য আলাদা একটি ফ্লোর থাকবে। আধুনিক প্রশিক্ষণ কেন্দ্র অডিটোরিয়াম থাকবে। এর মধ্যে ষষ্ঠতলায় নিউক্লিয়ার মেডিসিন সেন্টার করার পরিকল্পনাও রয়েছে

তিনি বলেন, বিশ্বমানের সেবা নিশ্চিত করার লক্ষ্য এই হাসপাতালটিকে অটোমেশন করতে উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। বিষয়ে সরকারি পর্যায়ে কথা হয়েছে। চূড়ান্ত হলেই হাসপাতালের জন্য একটি পাইলট প্রজেক্ট ঘোষণা করা হবে। বাংলাদেশে কোনো সরকারি বা বেসরকারি হাসপাতালে বিশ্বমানের ইমারজেন্সি বিভাগ নেই জানিয়ে উত্তম কুমার বলেন, লক্ষ্যে এই হাসপাতালে বিশ্বমানের একটি আধুনিক ইমার্জেন্সি কমপ্লেক্স করার পরিকল্পনা রয়েছে

তিনি বলেন, ‘সরকারি হাসপাতাল নিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে একধরনের উদাসীনতা রয়েছে। আমরা এই অচলায়তন ভাঙতে চাই। এখানে ৩৮টি বিভাগে নিয়মিত রোগীর চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করা হচ্ছে। হাসপাতাল ৮৫০ বেডের হলেও এখানে প্রতিদিন গড়ে ১৪শ রোগী ভর্তি থাকে। সবাইকে বেড সেবা নিশ্চিত করতে না পারলেও বিদ্যমান সীমাবদ্ধতার মাঝেই চিকিৎসাসেবা নিশ্চিতে সকলকে নিয়ে কাজ করে যাচ্ছি।

সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল হাসপাতালের পরিচালক আরও বলেন, হাসপাতালের পরিচ্ছন্নতা বজায় চিকিৎসা সেবার মানোন্নয়নে কোয়ালিটি ইমপ্রুভমেন্ট কেয়ার (কেইসি) নামে প্রকল্প গ্রহণ বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। কার্যক্রমে চিকিৎসক, নার্স ক্লিনার নিয়ে ওয়ার্ড, ইউনিট বিভাগ কেবিন সমন্বয়ে ৪৩টি কমিটি রয়েছে। হাসপাতালকে পরিচ্ছন্ন রাখার দায়িত্ব এই কমিটির। প্রতিমাসে হাসপাতাল ব্যবস্থাপনা কর্তপক্ষ কমিটির সভা করে থাকে। সেরা সেবাদাতাকে অণুপ্রাণিত করতে সনদ আর্থিক অনুদানের ব্যবস্থা করা হয়। দুইমাস পরপরবেস্ট ক্লিনার অ্যাওয়ার্ডদেয়াও চালু আছে। যাতে তারা উদ্যোগী হয়েই নিজেদের ওয়ার্ড পরিচ্ছন্ন রাখছে

অন্যদিকে সর্বাধুনিক প্রযুক্তি দিয়ে সব ধরনের প্যাথলজিক্যাল পরীক্ষা স্বল্প মূল্যে নিশ্চিত করতে চালু করা হয়েছেওয়ানস্টপ ক্যাশ কাউন্টার এতে রোগীর অর্থ সময় কম লাগে

সার্ভিসের কার্যকারিতা নিয়ে তিনি বলেন, চলতি বছরের এপ্রিল সেবা চালু হবার পর প্রায় তিন কোটি টাকার রাজস্ব এসেছে। গত এক বছরের সমপরিমাণ রাজস্ব। প্রতিদিন ৮০০ রোগী এই সুবিধা পেয়ে থাকে। সেবার মানের জন্যবিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাথেকেও স্বীকৃতি পেয়েছে হাসপাতাল

শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বিভিন্ন সেবার মধ্যেটেলি মেডিসিন সেন্টারঅন্যতম। দুরারোগ্য রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিদের বিশেষ তত্ত্বাবধানে চিকিৎসা সেবা দেয়া হয়। ডাটা প্রসেসিংয়ের মাধ্যমে ডেড সার্টিফিকেট (এমসিসিওডি) দেয়া হয়, যেখানে মৃত ব্যক্তির সম্পূর্ণ তথ্য থাকে। সাফল্যের অংশ হিসেবে ২০১৫ সালেবেস্ট অ্যাওয়ার্ড ইন গভর্নমেন্ট সেক্টরঅর্জন করেছে শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল

রাজধানীর নারিন্দা থেকে আসা শাহানা বেগম কে বলেন, গত কয়েক বছর আগে ননদের বাচ্চা হয় এই হাসপাতালে তখন আসছিলাম। এইবার আসছি ভাইয়ের বউকে নিয়ে। তিনি বলেন, এর আগে যখন এসেছি হাসপাতাল এমন পরিষ্কার ছিল না। এখন হাসপাতালে নিয়ম করে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করা হয়। -বাসস

 

কুমিল্লা নিউজ টুয়েন্টিফোর/নিজাম আহমেদ/১২ডিসেম্বর ২০১৭

 

 

কুমিল্লা নিউজ ডেস্ক।। বাংলাদেশে একজন ডাক্তার রোগীকে গড়ে ৪৮ সেকেন্ড সময় দেনলন্ডনের বিএমজে ওপেন মেডিকেল জার্নালে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এ তথ্য ওঠে এসেছেসেখানে বলা হয়েছে, ভারতে ডাক্তাররা রোগীদের খুব বেশি হলে দুমিনিট সময় দেন বাংলাদেশে অবস্থা আরও খারাপরোগীদের পেছনে মাত্র ৪৮ সেকেন্ড সময় ব্যয় করেন ডাক্তাররাআর পাকিস্তানে ডাক্তাররা ব্যয় করেন ১.৩ মিনিটজি নিউজ

 

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভারতে বেশির ভাগ রোগী বিভিন্ন ওষুধের দোকানে অ্যান্টিবায়োটিক্স কিনেই নিজেদের রোগ সারানডাক্তারের কাছে যা সময় পান সেটা নগণ্য বলাই ভালোআর রোগীদের এই কম সময় দেয়ার ফলে বেশিরভাগ ডাক্তার বুঝতেই পারেন না যে আদৌ রোগীর মূল সমস্যা কোথায়কিংবা রোগীরাও সঠিকভাবে ডাক্তারদের বুঝিয়ে বলতে পারেন না তাদের আসল সমস্যাটা কী

 

ভারতের কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য আধিকারিক রবি দুগ্গল জানান, সরকারি হাসপাতালের বহির্বিভাগে অতিরিক্ত সংখ্যায় রোগীদের চাপ থাকেআর তাই ডাক্তাররা একজন রোগীর পেছনে বেশি সময় দিতে পারেন নাতাই শুধু রোগীর রোগের লক্ষণ শুনে প্রেসক্রিপশন লিখে দেয়া ছাড়া আর কিছু করার থাকে না ডাক্তারদেরএকসঙ্গে প্রায় ২ থেকে ৩ জন রোগীকে দেখতে হয় তাদের

 

অন্যদিকে উন্নত বিশ্বের দেশগুলোর ক্ষেত্রে ছবিটা একেবারেই অন্যরকম পরিসংখ্যান বলছে- সুইডেন, নরওয়ে, আমেরিকা এসব দেশে ডাক্তাররা রোগীদের জন্য গড়ে প্রায় ২০ মিনিট করে সময় দেন

 

কুমিল্লা নিউজ টুয়েন্টিফোর/নিজাম আহমেদ/১০নভেম্বর ২০১৭

 

কুমিল্লা নিউজ ডেস্ক।। হার্টে বাইপাস অস্ত্রোপচারের পর চলচ্চিত্র অভিনেতা ও প্রযোজক মনোয়ার হোসেন ডিপজল এখন সুস্থ আছেনতার মেয়ে অলিজা মনোয়ার গতকাল মঙ্গলবার ফেসবুকের মাধ্যমে তেমনটাই জানিয়েছেন

সিঙ্গাপুর থেকে ডিপজলের দেশে ফেরার খবরও জানিয়েছেন তার কন্যা ওলিজা মনোয়ারওলিজা বলেন, বাবা এখন সুস্থ আছেনযারা বাবার সুস্থতার জন্য প্রার্থনা করেছেন তাদেরকে ধন্যবাদবৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় বিকেল ৫টার ফ্লাইটে তাকে নিয়ে সিঙ্গাপুর থেকে বাংলাদেশে ফিরব

গত ৩০ অক্টোবর সোমবার দুপুরে সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে ডিপজলের হার্টে বাইপাস অস্ত্রোপচার করা হয়এর আগে গত ১৯ সেপ্টেম্বর বিকেলে বাসায় হৃদরোগে আক্রান্ত হন ডিপজলএরপর গত ২৫ সেপ্টেম্বর ডিপজলের হার্টের এনজিওগ্রাম করা হয়এ সময় তার হার্টে একাধিক ব্লক পাওয়া যায়

 

কুমিল্লা নিউজ টুন্টিফোর/নিজাম আহমেদ/০৮ নভেম্বর ২০১৭

 

 

 

কুমিল্লা নিউজ ডেস্ক।। আগামীকাল ৯ নভেম্বর বৃহস্পতিবার দেশে আসছেন অভিনেতা মনোয়ার হোসেন ডিপজল খবরটি জানিয়েছেন ডিপজলের মেয়ে ওলিজা মনোয়ারতিনি জানান, বাবা এখন অনেকটাই সুস্থবৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় বিকাল ৫টায় তাকে নিয়ে বাংলাদেশে ফিরবো

দীর্ঘ দেড় মাস সিঙ্গাপুরের মাউন্ড এলিজাবেথ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন বাংলা ছবির এক সময়ের ভয়ংকর খল অভিনেতা ডিপজলসেখানে তাকে দুই দফায় অপারেশন হতে হয়েছে

গত ১৯ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার বিকালে নিজ বাসায় হৃদরোগে আক্রান্ত হন ডিপজল সেসময় দ্রুত তাকে রাজধানীর ল্যাবএইড হাসপাতালে নেয়া হয়চিকিৎসকরা তাকে করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) ভর্তি করেনএরপর উন্নত চিকিৎসার জন্য ২০ সেপ্টেম্বর বুধবার বিকালে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে ডিপজলকে সিঙ্গাপুর নিয়ে যাওয়া হয়ডিপজলের সঙ্গে সিঙ্গাপুর যান তাঁর স্ত্রী জবা ও মেয়ে ওলিজা মনোয়ার

এর পর গত ২৫ সেপ্টেম্বর প্রথম দফায় অস্ত্রোপচার হয় অসুস্থ ডিপজলের শরীরেতাঁর হার্টের রক্তনালীতে একাধিক ব্লক ধরা পড়ায় সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালের চিকিৎসকরা অপারেশন করে হার্টে রিং পরিয়ে দেন

পরে গত ৩০ অক্টোবর সোমবার দ্বিতীয় দফায় আবারও অপারেশন করা হয় ডিপজলকে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে তখন বাবার ওপেন হার্ট সার্জারি করানোর খবর জানিয়েছিলেন ডিপজলের মেয়ে ওলিজা মনোয়ার

এদিকে, অসুস্থ থাকার কারণে ডিপজলের বহুল আলোচিত ছবি দুলাভাই জিন্দাবাদএর কোনো অনুষ্ঠানেই থাকতে পারেননি তিনিএটিই ডিপজল অভিনীত শেষ ছবিছবিটিতে দুলাভাই চরিত্রে অভিনয় করেছেন ডিপজলতাঁর স্ত্রীর ভূমিকায় দেখা গেছে চিত্রনায়িকা মৌসুমীকেআরও আছেন বিদ্যা সিনহা মিম ও বাপ্পী চৌধুরী

 

কুমিল্লা নিউজ টুয়েন্টিফোর/নিজাম আহমেদ/০৮ নভেম্বর ২০১৭

 

 

 

কুমিল্লা নিউজ ডেস্ক।। পেনশনসহ বেতন-ভাতা রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে পরিশোধের দাবিতে হবিগঞ্জ পৌরসভায় কর্মকর্তা কর্মচারীরা অর্ধদিবস কর্মবিরতি পালন করেছেনবাংলাদেশ পৌরসভা সার্ভিস এসোসিয়েশনের ডাকে এ কর্মসূচি পালিত হয়সোমবার সকালে পৌরসভা প্রাঙ্গণে কর্মবিরতি পালনকালে তারা আশা প্রকাশ করেন সরকার তাদের এ দাবির প্রতি সু-নজর দেবেসকাল ৯টা থেকে বেলা ১টা পর্যন্ত কর্মসূচি চলেমধ্যাহ্নের পর আবারও পৌরসভার স্বাভাবিক কাজকর্ম শুরু হয়

 

 

কুমিল্লা নিউজ টুয়েন্টিফোর/নিজাম আহমেদ/০৬অক্টোবর২০১৭

 

কুমিল্লা নিউজ ডেস্ক। ফাস্ট ফুডের সাথে কিংবা ক্লাসের ফাকে এক বোতল কোমল পানীয় পান না করলে অনেকেরই মন ভরেনাকিন্তু যেসব পুরুষ প্রতিদিনই কোমল পানীয় পান করেন তাদেরকে দুঃসংবাদ দিয়েছে একটি ড্যানিস গবেষণাসেখানে বলা হয়েছে যারা প্রতিদিন প্রায় এক লিটারের কাছাকাছি পরিমাণ কোমল পানীয় পান করেন তাদের শুক্রাণুর সংখ্যা উল্লেখযোগ্য হারে কমে যায়

গবেষণায় দেখা গেছে যারা নিয়মিত কোমল পানীয় পান করেন তাদের শুক্রাণু গড়ে প্রায় ৩০% পর্যন্ত কমে যায়, যারা পান করেন না তাদের তুলনায়গবেষণাটি ২৫০০ তরুণের উপর চালানো হয়েছিলগবেষণায় যারা কোমল পানীয় পান করেন না এবং স্বাস্থ্যকর জীবন-যাপন করেন তাদের শুক্রাণুর মান ভালো ছিলপ্রতি মিলিলিটার বীর্যে প্রায় ৫০ মিলিয়ন শুক্রাণু ছিল তাদেরঅন্যদিনে যারা নিয়মিত এক লিটারের বেশি কোমল পানীয় পান করেন তাদের প্রতি মিলিলিটার বীর্যে প্রায় মাত্র ৩৫ মিলিয়ন শুক্রাণু পাওয়া গেছেএই ধরণের মানুষের ফাস্ট ফুড বেশি খাওয়া এবং ফল ও সবজি কম খাওয়ার প্রবণতাও লক্ষ্য করার মতো

গবেষকরা জানিয়েছেন, কোমল পানিয়ের ক্যাফেইনের কারণে শুক্রাণু কমছে না কারণ ক্যাফেইন পান এবং কোমল পানিয় পানের ফলাফল এক নয়তাই কোমল পানীয়তে উপস্থিত চিনি এবং অন্যান্য ক্ষতিকর উপাদানের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে পুরুষের প্রজনন স্বাস্থ্যগবেষণাটি আমেরিকান জার্নাল অব এপিডেমিওলোজিতে প্রকাশিত হয়েছেডেইলি মেইল

কুমিল্লা নিউজ টুয়েন্টিফোর/নিজাম আহমেদে/০৫অক্টোবর ২০১৭

 

 

কুমিল্লা নিউজ ডেস্ক।।বিয়ের পরে অনেকেই জানান তাদের ওজন বেড়েছেতাই অনেক মানুষেরই ধারণা যৌনতার কারণে ওজন বেড়ে যায়কিছু গবেষক জানান যৌনতায় ওজন বাড়েআবার কারও মতে, বাড়তি ক্যালরি ক্ষয় হওয়ার কারণে যৌনতায় ওজন বাড়া দূরে থাক, কিছুটা কমেকিন্তু যৌনতার সঙ্গে কি আসলেই ওজন বৃদ্ধির কোনো সম্পর্ক আছে? নাকি বিষয়টি ভিত্তিহীন?

ভারতের ম্যাঙ্গালোর এর কাসতুরবা মেডিক্যাল কলেজের ফরেনসিক মেডিসিন অ্যান্ড টক্সিকোলজি বিভাগের গবেষক রিতেশ মেনেজেস এর মতে, নিয়মিত যৌনতার কারণে অনেক নারীর শরীরই কিছুটা ভারি হয়ে যায়এর পেছনের কারণ হলো প্রোল্যাকটিন হরমোনপ্রতিবার যৌন মিলনের সময় রক্তে প্রোল্যাকটিন এর পরিমাণ বেড়ে যায়নিয়মিত প্রোল্যাকটিন বেড়ে যাওয়ার ফলে দ্রুত ওজন বেড়ে যায় গবেষকরা অবশ্য এটা জানিয়ে দিয়েছেন যে এই সাময়িক প্রোল্যাকটিন বৃদ্ধি এবং হাইপারপ্রোল্যাকটিনামিয়া এক নয়

তবে ইউনিভার্সিটি অব দ্যা ওয়েস্ট অব স্কটল্যান্ডের গবেষক স্টুয়ার্ট ব্রডি জানিয়েছেন পুরোই ভিন্ন কথাযৌন মিলনের ফলে নারীদের ওজন বাড়ে, এই কথার সঙ্গে তিনি একমত ননপ্রোল্যাকটিনের বিষয়টিকে ভিত্তিহীন বলেছেন তিনি তার মতে যৌন মিলনের সঙ্গে দৈহিক পরিবর্তনের কোনো সম্পর্ক নেইবরং যৌন মিলনের সময় বেশ খানিকটা ক্যালরি পোড়ে১২০ জন নারী পুরুষের ওপর গবেষণা চালিয়ে তিনি দেখেছেন যারা নিয়মিত যৌনতায় অভ্যস্ত ছিলেন তারা অন্যদের চাইতে বেশি ফিট৩০ মিনিটের অন্তরঙ্গ মূহূর্তে ১০০ ক্যালরি পোড়েতাই ওজন নিয়মিত যৌনতায় ওজন বাড়ার বদলে কমার সম্ভাবনা আছেঅবশ্য এভাবে ওজন কমাতে চাইলে মাত্র এক পাউন্ড কমাতে ৩৫ বার শারীরিকভাবে মিলিত হতে হবে সঙ্গীর সঙ্গে

এছাড়াও যৌনতা শরীরে দুশ্চিন্তা সৃষ্টিকারী হরমোন কর্টিসলকে নিয়ন্ত্রণে রাখেকর্টিসল হরমোন বেড়ে গেলে কার্বোহাইড্রেট এবং ফ্যাট জাতীয় খাবার খাওয়ার ইচ্ছে বেড়ে যায়তাই নিয়মিত যৌনতায় কার্বোহাইড্রেট এবং ফ্যাট জাতীয় খাবার খাওয়ার পরিমাণ কমে যায়ফলে ওজন নিয়ন্ত্রিত থাকে

তবে, বিয়ের পরে নারীদের ওজন বাড়ার একটি সম্ভাব্য কারণ হতে পারে জন্ম নিয়ন্ত্রণ পিলযারা নিয়মিত জন্ম নিয়ন্ত্রণ পিল গ্রহণ করেন তাদের কিছুটা মুটিয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকেএটা জন্ম নিয়ন্ত্রণ পিল এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার কারণে হতে পারেতবে এটা খুব সাময়িকসাধারণত দুইমাসের মধ্যেই আবার ওজন স্বাভাবিক হয়ে যায় এক্ষেত্রে

কুমিল্লা নিউজ টুয়েন্টিফোর/নিজাম আহমেদ/০৩অক্টোবর ২০১৭

 

 

 

Page 1 of 8

দারোগা বাড়ি, উত্তর চর্থা
কুমিল্লা-৩৫০০, বাংলাদেশ
ই-মেইল: bdcomillanews24@gmail.com
নিউজ রুম: +8801976530514

প্রধান সম্পাদকঃ হুমায়ূন কবির রনি
নিউজরুম এডিটরঃ তানভীর খন্দকার দীপু
নূরুল আমিন জহির
ই-মেইলঃ editor@comillanews24.com