আজ ২৩শে এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, রাত ৩:১৯

প্রয়াত উপমন্ত্রী ফখরুল মুন্সীর কুলখানিতে অর্ধলক্ষাধিক লোকের মেহমানদারী

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

দেবিদ্বার, প্রতিনিধি।।
সাবেক অর্থ উপমন্ত্রী, আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য ও দেবিদ্বারে সাবেক সংসদ সদস্য এএফএম ফখরুল ইসলাম মুন্সী’র আত্মার মাগফেরাত কামনায় কুমিল্লার দেবিদ্বারসহ আসপাশের কয়েক উপজেলার অর্ধলক্ষাধিক লোকের মেহমানদারী করেছে প্রয়াত এই নেতার পরিবার।

শুক্রবার সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত দেবিদ্বার এবিএম গোলাম মোস্তফা স্টেডিয়ামে এই কুলখানি অনুষ্ঠানের মেহমানদারি হয়। দেখা গেছে, স্টেডিয়ামে ২৫০০শ লোকের বসার ব্যবস্থা ও থানার সামনের প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে হিন্দু সম্প্রদায়ের জন্য ২০০শ লোক বসার ব্যবস্থা করের আয়োজকরা। এর আগে বৃহস্পতিবার সন্ধায় একই স্থানে ফখরুল ইসলাম মুন্সী’র স্মরণে দোয়া ও স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

স্মরণ সভায় ফখরুল মুন্সীর সৃতিচারণ করে বক্তব্য রাখেন- তারই বড় ছেলে এপি গ্রæপের চেয়ারম্যান রাকিব মোহাম্মদ ফখররুল (রকি), ছোট ছেলে কুমিল্লা-৪ দেবিদ্বার আসনের সংসদ সদস্য রাজী মোহাম্মদ ফখরুল, কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ¦ রোশন আলী মাস্টার, সাংগঠনিক সম্পাদক আলহাজ্ব হুমায়ুন কবির চেয়ারম্যান ও নাছির উদ্দীন শিশির, দেবিদ্বার পৌর মেয়র প্রভাষক সাইফুল ইসলাম শামীম, দেবিদ্বার উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি একেএম শফিউদ্দিন, সাধারন সম্পাদক মোস্তফা কামাল চৌধুরীসহ দেবিদ্বার উপজেলা আওয়ামী লীগ, এর অঙ্গ সংগঠনের জ্যেষ্ঠ নেতাকর্মীরা।

উল্লেখ্য, গত ৯ অক্টোবর ফখরুল ইসলাম মুন্সী ব্রেনস্টোাক করায় তাকে রাজধানীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে লাইফ সাপোর্টে নেয়া হয়েছিলো। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায়ই ২১ অক্টোবর শনিবার ভোর ৪ টা ৪০ মিনিটে তিনি মারা যান। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৬ বছর।

একই দিন বাদ যোহর প্রয়াত এই নেতার নিজগ্রাম দেবিদ্বার বনকুটে প্রথম জানাযা, এবিএম গোলাম মোস্তফা স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় জানাযা হয়। এর পরে সংসদ ভবন এলাকায় তৃতীয় জানাযা ও বাদ মাগরিব গুলশান সোসাইটি মসজিদে চতুর্থ জানাযা শেষে বনানী কবরস্থানে মরহুমের দাফন সম্পন্ন হয়।

এএফএম ফখরুল ইসলাম মুন্সী ১৯৮৫ সালে প্রথম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় দেবিদ্বার উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হন। একই সময় বাংলাদেশ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান পরিষদ’র চেয়ারম্যান পদেও নির্বাচিত হন। ১৯৮৬ সালের তৃতীয় ও ১৯৮৮ সালের চতুর্থ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তিনি জাতীয় পার্টি থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। তিনি এরশাদ সরকারের নৌ-পরিবহন ও আইডবিøউটি মন্ত্রনালয়ের উপমন্ত্রী এবং অর্থ উপ-মন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন।

সিএন/৯০

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

আরো পড়ুন

সর্বশেষ খবর

পুরাতন খবর

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০  
Scroll to Top