আজ ১৪ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, সন্ধ্যা ৭:৫৯

এইচএসসি পরীক্ষা শুরু আজ, কুমিল্লা বোর্ডে পরীক্ষার্থী ১ লাখ ১২ হাজার ৯৬৪ জন

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

কুমিল্লা প্রতিনিধি।।
রবিবার (৩০ জুন) থেকে শুরু হতে যাচ্ছে চলতি বছরের এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা। এবার কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের অধীনে এইচএসসি পরীক্ষার্থী ১ লাখ ১২ হাজার ৯৬৪ জন।

কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ড সূত্রে জানা গেছে, এ বছর কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের অধীনে ৬ জেলায় ৪৩২টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মোট ১৯৫ কেন্দ্রে পরীক্ষা নেয়া হবে। জেলাভিত্তিক পরীক্ষার্থীর মধ্যে কুমিল্লা জেলায় ১৬৩টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ৭৭টি কেন্দ্রে পরীক্ষার্থী ৩৯ হাজার ৩৯৬ জন, নোয়াখালী জেলায় ৫৫টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ২৬টি কেন্দ্রে পরীক্ষার্থী ১৯ হাজার ৬৬২ জন, ব্রাহ্মণবাড়ীয়া জেলায় ৬৫টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ২৮টি কেন্দ্রে ১৫ হাজার ২৯৭ জন পরীক্ষার্থী, চাঁদপুর জেলায় ৬৭টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ৩৪টি কেন্দ্রে ১৬ হাজার ২১৫ জন পরীক্ষার্থী, ফেনী জেলায় ৪২টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ১৩টি কেন্দ্রে ১১ হাজার ৬৪ জন পরীক্ষার্থী এবং লক্ষ্মীপুর জেলায় ৪০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ১৬টি কেন্দ্রে ১১ হাজার ৩৩০ জন।

এবার কুমিল্লা বোর্ডের অধীনে ৬টি জেলায় ৪৩২টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ১৯৫টি কেন্দ্রে ১ লাখ ১২ হাজার ৯৬৪ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করবে। পরীক্ষার্থীদের মধ্যে ছাত্র ৪৮ হাজার ২৬০ জন এবং ছাত্রী ৬৪ হাজার ৭০৪ জন। বিজ্ঞান বিভাগে পরীক্ষার্থী ২৮ হাজার ৩৯ জন, মানবিক বিভাগে ৫২ হাজার ২৬৪ জন এবং ব্যবসা বাণিজ্য শিক্ষায় ৩২ হাজার ৬৬১ জন পরীক্ষার্থী এইচএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করবে।

কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মো. নিজামুল করিম বলেন, এইচএসসি পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে জেলা-উপজেলা প্রশাসন পুলিশ এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সার্বিক সহযোগিতা প্রদান করবে।

এদিকে, এবার ৯টি সাধারণ শিক্ষা বোর্ড, কারিগরি শিক্ষা বোর্ড ও মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের এইচএসসি/আলিম/এইচএসসি (বিএম/বিএমটি), এইচএসসি(ভোকেশনাল)/ডিপ্লোমা ইন কমার্স পরীক্ষায় মোট পরীক্ষার্থী ১৪ লাখ ৫০ হাজার ৭৯০ জন।

এরমধ্যে ছাত্র সংখ্যা ৭ লাখ ৫০ হাজার ২৮১ জন এবং ছাত্রী সংখা ৭ লাখ ৫০৯ জন।এবার মোট কেন্দ্র ২ হাজার ৭২৫ টি ও মোট শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ৯ হাজার ৪৬৩ টি।নয়টি সাধারণ শিক্ষা বোর্ডে, মোট পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ১১ লাখ ২৮ হাজার ২৮১ জন।

এরমধ্যে ছাত্র সংখ্যা ৫ লাখ ৩৩ হাজার ৬৮০ জন এবং ছাত্রী সংখ্যা ৫ লাখ ৯৪ হাজার ৬০১ জন। মোট কেন্দ্র ১ হাজার ৫৬৬ টি এবং মোট শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ৪ হাজার ৮৭০টি।

আলিম পরীক্ষায় এবার পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ৮৮ হাজার ৭৬ জন। এরমধ্যে ছাত্র ৪৭ হাজার ৫৯২ জন এবং ছাত্রী সংখা ৪০ হাজার ৪৮৪ জন। মোট কেন্দ্র ৪৫২ টি এবং মোট শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ২ হাজার ৬৮৫ টি।

এইচএসসি (বিএম/বিএমটি) এইচএসসি (ভোকেশনাল)/ডিপ্লোমা ইন কমার্স পরীক্ষা (কারিগরি) বোর্ডের চলতি বছরে মোট পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ২ লাখ ৩৪ হাজার ৪৩৩ জন। এরমধ্যে ছাত্র সংখ্যা ১ লাখ ৬৯ হাজার ৯ জন এবং ছাত্রী সংখ্যা ৬৫ হাজার ৪২৪ জন। মোট কেন্দ্র ৭০৭ টি এবং শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ১ হাজার ৯০৮ টি।

গতবছরের তুলনায় ২০২৪ সালে চলতি বছরে মোট পরীক্ষার্থীর সংখ্যা বেড়েছে ৯১ হাজার ৪৪৮ জন। মোট প্রতিষ্ঠান বেড়েছে ২৯৪ টি, মোট কেন্দ্র বেড়েছে ৬৭ টি।

অন্যদিকে, পরীক্ষা সূচারুভাবে সম্পন্নের লক্ষ্যে কিছু নির্দেশনা দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

এসব নির্দেশনায় বলা হয়, পরীক্ষা শুরুর কমপক্ষে ৩০ মিনিট পূর্বে পরীক্ষার্থীদেরকে অবশ্যই পরীক্ষার হলে প্রবেশ করতে হবে। অনিবার্য কারণে কোন পরীক্ষার্থীকে নির্ধারিত সময়ের পরে প্রবেশ করতে দিলে তার নাম,রোল নম্বর,প্রবেশের সময়,বিলম্ব হওয়ার কারণ ইত্যাদি একটি রেজিষ্টারে লিখে ওই দিনই সংশ্লিষ্ট শিক্ষা বোর্ডে প্রতিবেদন দিতে হবে।

পরীক্ষা শুরুর ২৫ মিনিট পূর্বে এসএমএস এর মাধ্যমে সংশ্লিষ্টদের কাছে প্রশ্ন পত্রের সেট কোড জানিয়ে দেওয়া হবে। ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ছাড়া অন্য কেউ মোবাইল ফোন/ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস নিয়ে কেন্দ্রে প্রবেশ করতে পারবেন না; শুধু ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোবাইল ফোন ব্যবহার করতে পারবেন (তবে ছবি তোলা যায় না এমন মোবাইল ফোন)।

পরীক্ষা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি (যেমন-পরীক্ষার্থী, কক্ষ প্রত্যবেক্ষক (ইনভিজিলেটর),মন্ত্রণালয়ের কেন্দ্র পরিদর্শন টিম,বোর্ডের কেন্দ্র পরিদর্শন টিম, জেলা প্রশাসন ও উপজেলা প্রশাসনের পরিদর্শন টিম,নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সদস্য ছাড়া অন্য কেউই কেন্দ্রে প্রবেশ করতে পারবে না।

এছাড়া বিশেষ সক্ষম (ডিফারেন্টলি অ্যাবল) পরীক্ষার্থীদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা নিয়েছে শিক্ষামন্ত্রণালয়। বিশেষ ব্যবস্থায় উল্লেখ করা হয়েছে,দৃষ্টি প্রতিবন্ধী,সেরিব্রালপালসি জনিত প্রতিবন্ধী এবং যাদের হাত নেই এমন প্রতিবন্ধী পরীক্ষার্থী স্ক্রাইব (শ্রুতি লেখক) সঙ্গে নিয়ে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে পারবে।

এ ধরনের পরীক্ষার্থীদের এবং শ্রবণ পরীক্ষার্থীদের জন্য অতিরিক্ত ২০ মিনিট বাড়ানো হয়েছে। প্রতিবন্ধী (অটিস্টিক, ডাউনসিন্ড্রম,সেরিব্রালপালসি) পরীক্ষার্থীদের জন্য অতিরিক্ত ৩০ মিনিট সময় বাড়ানোসহ শিক্ষক,অভিভাবক বা সাহায্যকারীর বিশেষ সহযোগিতা দেওয়ার সুযোগ সৃষ্টি করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

এআই/কুমিল্লা নিউজ২৪

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

আরো পড়ুন

সর্বশেষ খবর

পুরাতন খবর

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  
Scroll to Top